Sunday, 11.18.2018, 03:00pm (GMT+6)
  Home
  FAQ
  RSS
  Links
  Site Map
  Contact
 
আবদুুল হাই মাশরেকী ছিলেন মূলসংস্কৃতির শিকড়ের আধুনিক কবি ; লোককবি আবদুুল হাই মাশরেকীর ৯৭তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে শিল্পকলায় দুদিনব্যা ; লোককবি আবদুুল হাই মাশরেকীর ৯৭ তম জন্মজয়ন্তী আগামী ১ এপ্রিল ২০১৬ ; আল মুজাহিদী ; ভাষাসৈনিক আবদুল মতিন
::| Keyword:       [Advance Search]
 
All News  
  গুণীজন সংবাদ
  বিপ্লবী
  ভাষা সৈনিক
  মুক্তিযোদ্ধা
  রাজনীতিবিদ
  কবি
  নাট্যকার
  লেখক
  ব্যাংকার
  ডাক্তার
  সংসদ সদস্য
  শিক্ষাবিদ
  আইনজীবি
  অর্থনীতিবিদ
  খেলোয়াড়
  গবেষক
  গণমাধ্যম
  সংগঠক
  অভিনেতা
  সঙ্গীত
  চিত্রশিল্পি
  কার্টুনিস্ট
  সাহিত্যকুঞ্জ
  ফটো গ্যাল্যারি
  কবিয়াল
  গুণীজন বচন
  তথ্য কর্ণার
  গুণীজন ফিড
  ফিউচার লিডার্স
  ::| Newsletter
Your Name:
Your Email:
 
 
 
সংগঠক
 
শচীন্দ্র কুমার চাকী



শচীন্দ্র কুমার চাকী ১৯২০ সালে গাইবান্ধা সদর উপজেলার দারিয়াপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা মনীন্দ্রনাথ চাকী এবং মা আশালতা চাকী। বিয়ে হয় জয়শ্রী চাকীর সাথে। শচীন চাকী নামে সর্বাধিক পরিচিত এই মানুষটি ৬ ছেলে ও ৩ মেয়ের জনক ছিলেন।
শচীন চাকী নিজ গ্রাম দারিয়াপুরে প্রাথমিক শিক্ষা গ্রহণ করেন। পরে গাইবান্ধা লোকাল হাইস্কুলে (বর্তমান সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়) পড়াশুনা করেন। স্কুল জীবনেই জড়িয়ে পড়েন খেলাধুলা আর সাংস্কৃতিক চর্চার সাথে। ১৯৩৬ সালে যুক্ত হন গাইবান্ধা নাট্য সংস্থায়। উনিশশো পঞ্চাশের শুরু থেকেই ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয়ে লেখালেখি শুরু করেন স্থানীয় ও জাতীয় সংবাদপত্রে। তাঁর প্রথম নাটকের বই ‘মুখোশ যখন খুলবে’। এ সময় নাট্য নির্দেশনা ও অভিনয়ও শুরু করেন। তিনি জর্জ করনেশন ড্রামেটিক এ্যাসোসিয়েশন, জিসিডিএ (বর্তমানে গাইবান্ধা নাট্য ও সাংস্কৃতিক সংস্থা)-র সহ-সভাপতিসহ বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেন।

ক্রীড়াঙ্গনের সাথে শচীন চাকীর সম্পর্ক ছিল খুবই ঘনিষ্ট। ছাত্রজীবনে ফুটবল, ক্রিকেট ও টেবিল টেনিস খেলতেন। কিন্তু অল্প বয়সেই ক্রীড়া সংগঠক হিসেবে দায়িত্ব পালন শুরু করেন। ১৯৪৬ সালে গাইবান্ধা টাউন ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক এবং ১৯৫০ সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। ১৯৫৮ সালে গাইবান্ধা সিওয়াইএসএ ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এবং পরে সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৬৯ সালে গাইবান্ধা মহকুমা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। স্বাধীনতার পরও দীর্ঘদিন এ দায়িত্ব পালন  করেন। ১৯৮৪ সালে গাইবান্ধা জেলা ক্রীড়া সংস্থা গঠিত হলে প্রথম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব লাভ করেন। রংপুর জেলা ক্রীড়া সংস্থাতেও বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত গাইবান্ধা জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক ও সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন। ১৯৭৯-৮১ সাল তিন বছর রাজশাহী বিভাগীয় টেবিল টেনিস সংস্থার সাংগঠনিক সম্পাদক এবং বাংলাদেশ টেবিল টেনিস ফেডারেশনের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ছিলেন। ১৯৯৬ সালে ভারতে অনুষ্ঠিত ৭ম সাফ গেমসে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের সদস্য হিসেবে যোগ দেন।

শচীন চাকী শ্রেষ্ঠ ক্রীড়া সংগঠক হিসেবে ১৯৮৪ সালে দৈনিক দাবানল স্বর্ণপদক; ১৯৮৬ সালে বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতি পুরষ্কার; ১৯৮৮ সালে বাংলাদেশ ক্রীড়া সাংবাদিক সমিতি পুরষ্কার এবং ১৯৮৯ সালে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ পুরষ্কার লাভ করেন। ১৯৯৭ সালে তাঁকে সেরা সংগঠক হিসেবে জাতীয় ক্রীড়া পুরষ্কার (মরণোত্তর) প্রদান করা হয়। স্থানীয়ভাবে ১৪০৪ বঙ্গাব্দে বৈশাখী মেলায় এবং ১৯৯৫ সালে গ্রন্থমেলায় তাঁকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

১৯৯৭ সালের ১০ নভেম্বর শচীন চাকী মৃত্যুবরণ করেন। - জহুরুল কাইয়ুম

বিস্তারিত জানতে পড়ুন: রঙ্গপুরের বরেণ্য ব্যক্তিত্ব- রঙ্গপুর গবেষণা পরিষদ।

Comments (0)        Print        Tell friend        Top




 
  ::| Events
November 2018  
Su Mo Tu We Th Fr Sa
        1 2 3
4 5 6 7 8 9 10
11 12 13 14 15 16 17
18 19 20 21 22 23 24
25 26 27 28 29 30  
 

Online News Powered by: WebSoft
[Top Page]