Monday, 05.20.2019, 03:56am (GMT+6)
  Home
  FAQ
  RSS
  Links
  Site Map
  Contact
 
আবদুুল হাই মাশরেকী ছিলেন মূলসংস্কৃতির শিকড়ের আধুনিক কবি ; লোককবি আবদুুল হাই মাশরেকীর ৯৭তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে শিল্পকলায় দুদিনব্যা ; লোককবি আবদুুল হাই মাশরেকীর ৯৭ তম জন্মজয়ন্তী আগামী ১ এপ্রিল ২০১৬ ; আল মুজাহিদী ; ভাষাসৈনিক আবদুল মতিন
::| Keyword:       [Advance Search]
 
All News  
  গুণীজন সংবাদ
  বিপ্লবী
  ভাষা সৈনিক
  মুক্তিযোদ্ধা
  রাজনীতিবিদ
  কবি
  নাট্যকার
  লেখক
  ব্যাংকার
  ডাক্তার
  সংসদ সদস্য
  শিক্ষাবিদ
  আইনজীবি
  অর্থনীতিবিদ
  খেলোয়াড়
  গবেষক
  গণমাধ্যম
  সংগঠক
  অভিনেতা
  সঙ্গীত
  চিত্রশিল্পি
  কার্টুনিস্ট
  সাহিত্যকুঞ্জ
  ফটো গ্যাল্যারি
  কবিয়াল
  গুণীজন বচন
  তথ্য কর্ণার
  গুণীজন ফিড
  ফিউচার লিডার্স
  ::| Newsletter
Your Name:
Your Email:
 
 
 
রাজনীতিবিদ
 
ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ



জনাব ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ (জন্ম-১৯৪০) বাংলাদেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী। তিনি বিএনপির ও জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতাদের অন্যতম। অষ্টম জাতীয় সংসদে তিনি আইন ও বিচার বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী ছিলেন।
জন্ম:

জনাব ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ ১৯৪০ সালের মে মাসে নোয়াখালী জেলার কোম্পানিগন্জ উপজেলায় জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মাওলানা মরহুম মমতাজ উদ্দিন আহমেদ এবং মা মরহুম আম্বিয়া খাতুন। ছয় ভাইবোনের মধ্যে জনাব মওদুদ আহমেদ চতুর্থ।
শিক্ষা:

তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সম্মান পাশ করে বৃটেনের লন্ডনস্থ লিঙ্কন্স্ ইন থেকে ব্যারিস্টার-এ্যাট-ল' ডিগ্রি অর্জন করেন। লন্ডনে পড়াশুনা করে তিনি দেশে ফিরে আসেন এবং হাইকোর্টে ওকালতি শুরু করেন। তিনি ব্লান্ড ভিজিটিং প্রফেসর হিসেবে জর্জ ওয়াশিংটন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত ছিলনে।
মুক্তিযুদ্ধে ভূমিকা:

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে জনাব ব্যারিস্টার মওদুদ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। ১৯৭১-এ ইয়াহিয়া খান কর্তৃক আহুত গোলটেবিল বৈঠক তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাথে ছিলেন।
রাজনীতি:

১৯৭৭-৭৯ সালে তিনি রাষ্ট্রপতি মরহুম জিয়াউর রহমানের সরকারের মন্ত্রী ও উপদেষ্টা ছিলেন। ১৯৭৯ সালে তিনি প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং তাকে উপ-প্রধানমন্ত্রী করা হয়। ১৯৮০ সালের মে মাসে  জিয়াউর রহমান নিহত হন এবং এক বছরের ভেতর জনাব হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ রাষ্ট্রক্ষমতা গ্রহণ করেন। ১৯৮৫ এর নির্বাচনে জনাব মওদুদ আহমেদ আবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এবং সরকারের তথ্য মন্ত্রীর দায়িত্ব পান। এক বছর পর ১৯৮৬ এ তাঁকে আবার উপ-প্রধানমন্ত্রী করা হয়। ১৯৮৮ সালে তিনি প্রধানমন্ত্রী হন। ১৯৮৯ সালে তাঁকে শিল্প মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয় এবং জনাব মুহাম্মদ এরশাদ তাঁকে উপ-রাষ্ট্রপতি করেন। ৬ ডিসেম্বর ১৯৯০ সালে এরশাদ সরকার জনরোষের মুখে ক্ষমতা ছেড়ে দেয়। জাতীয় পার্টির মনোনয়ন নিয়ে ১৯৯১-এ জনাব মওদুদ আহমেদ আবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে তিনি বিএনপিতে যোগ দেন। ২০০১ সালেও তিনি বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পাঁচবার জনাব মওদুদ আহমেদ নোয়াখালী জেলার কোম্পানীগন্জ উপজেলা থেকে নির্বাচিত হন।
মন্ত্রীত্ব

মরহুম জিয়াউর রহমান ও এরশাদের শাসনামলে মওদুদ আহমেদ বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ের দায়িত্বে ছিলেন।

• শিল্প মন্ত্রনালয়

• পরিকল্পনা, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয়

• বিদ্যুৎ মন্ত্রনালয়

• পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়

• বন্যা নিয়ন্ত্রন মন্ত্রনালয়

• যোগাযোগ ও রেলযোগাযোগ মন্ত্রনালয়

• সড়ক যোগাযোগ মন্ত্রনালয়

 • টেলিগ্রাফ ও টেলিফোন মন্ত্রনালয়

• অষ্টম জাতীয় সংসদে মওদুদ আহমেদ আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব পালন করেন।
রাজনৈতিক দল সংগঠন:

মন্ত্রীত্ব ছাড়াও জনাব মওদুদ আহমেদ মরহুম জিয়াউর রহমানকে বিএনপি প্রতিষ্ঠায় সাহায্য করেন। এই দলের তিনি অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা। তিনি জনাব মুহাম্মদ এরশাদের জাতীয় পার্টির সংগঠনেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন।

Comments (0)        Print        Tell friend        Top


Other Articles:
খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন
আবদুল মান্নান ভূঁইয়া
লুৎফর রহমান
মো: খালেদ



 
  ::| Events
May 2019  
Su Mo Tu We Th Fr Sa
      1 2 3 4
5 6 7 8 9 10 11
12 13 14 15 16 17 18
19 20 21 22 23 24 25
26 27 28 29 30 31  
 
::| Hot News
শের-এ-বাংলা আবুল কাশেম ফজলুল হক
ব্যারিষ্টার সৈয়দ কামরুল ইসলাম মোহাম্মদ সালেহ্‌উদ্দিন
মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, বীর প্রতীক
হাজী মোহাম্মদ দানেশ
সিরাজুল আলম খান
সৈয়দ নজরুল ইসলাম
হবীবুল্লাহ বাহার
আবদুল হামিদ খান ভাসানী

Online News Powered by: WebSoft
[Top Page]