Friday, 05.24.2019, 02:13am (GMT+6)
  Home
  FAQ
  RSS
  Links
  Site Map
  Contact
 
আবদুুল হাই মাশরেকী ছিলেন মূলসংস্কৃতির শিকড়ের আধুনিক কবি ; লোককবি আবদুুল হাই মাশরেকীর ৯৭তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে শিল্পকলায় দুদিনব্যা ; লোককবি আবদুুল হাই মাশরেকীর ৯৭ তম জন্মজয়ন্তী আগামী ১ এপ্রিল ২০১৬ ; আল মুজাহিদী ; ভাষাসৈনিক আবদুল মতিন
::| Keyword:       [Advance Search]
 
All News  
  গুণীজন সংবাদ
  বিপ্লবী
  ভাষা সৈনিক
  মুক্তিযোদ্ধা
  রাজনীতিবিদ
  কবি
  নাট্যকার
  লেখক
  ব্যাংকার
  ডাক্তার
  সংসদ সদস্য
  শিক্ষাবিদ
  আইনজীবি
  অর্থনীতিবিদ
  খেলোয়াড়
  গবেষক
  গণমাধ্যম
  সংগঠক
  অভিনেতা
  সঙ্গীত
  চিত্রশিল্পি
  কার্টুনিস্ট
  সাহিত্যকুঞ্জ
  ফটো গ্যাল্যারি
  কবিয়াল
  গুণীজন বচন
  তথ্য কর্ণার
  গুণীজন ফিড
  ফিউচার লিডার্স
  ::| Newsletter
Your Name:
Your Email:
 
 
 
ভাষা সৈনিক
 

গাজীউল হক





গাজীউল হক (১৩ ফেব্রুয়ারি, ১৯২৯ – ১৭ই জুন, ২০০৯) ১৯২৯ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি তৎকালীন নোয়াখালী জেলার ছাগলনাইয়া থানার নিচিন্তা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা মওলানা সিরাজুল হক ছিলেন কংগ্রেস ও খেলাফত আন্দোলনের একজন সক্রিয় কর্মী। গাজীউল হকের শিক্ষাজীবন শুরু হয় মক্তবে। এরপর কাশিপুর স্কুল। ১৯৪১ সালে গাজীউল হক বগুড়া জেলা স্কুলে ষষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তি হন।

বগুড়া জেলা স্কুল থেকেই তিনি ১৯৪৬ সালে প্রথম বিভাগে ম্যাট্রিকুলেশন (বর্তমানে এসএসসি) পাস করে আইএতে ভর্তি হন বগুড়া আজিজুল হক কলেজে। সেখানে অধ্যক্ষ ভাষাবিজ্ঞানী ড· মুহম্মদ শহীদুল্লাহর সংস্পর্শে আসেন গাজীউল। আন্দোলনমুখর কলেজজীবনেও তিনি তারকা নম্বর নিয়ে আইএ পাস করেন। এবার চলে আসেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে, ইতিহাস বিভাগে স্মাতক শ্রেণীর শিক্ষার্থী হিসেবে।

১৯৪৪ সালে তিনি বঙ্গীয় মুসলিম ছাত্রলীগ বগুড়া জেলা শাখার যুগ্ম সম্পাদক নিযুক্ত হন। ওই বছর কুষ্টিয়ায় সম্মেলনে শেখ মুজিবুর রহমানের সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয়। ১৯৪৮ সালে পূর্ব-পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগের বগুড়া জেলা শাখার সভাপতি হন।
তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন ১৯৪৮ সালে। ঢাকায় এসেই নানা রকম প্রগতিশীল আন্দোলনের সঙ্গে জড়িত হন। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাস বিভাগের পড়াশোনার পাঠ চুকিয়ে আবার ভর্তি হন আইন বিভাগে। তবে এ সময় তাঁকে আন্দোলনে জড়িত থাকার অভিযোগে বহিষ্কার করা হয়। পরে অবশ্য ছাত্রদের সংগ্রামের মুখে বহিষ্কারাদেশ তুলে নেওয়া হয়। ১৯৫৩ সাল থেকে আড়াই বছর কারাগারে থাকার সময় তিনি রমেশ শীল, মুনীর চৌধুরী, অজিত গুহ, রণেশ দাশগুপ্ত প্রমুখের সান্নিধ্যে আসেন।

১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি তৎকালীন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আমতলায় সর্বদলীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের যে সভা থেকে ১৪৪ ধারা ভঙ্গের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, তার সভাপতি ছিলেন গাজীউল হক। একুশ নিয়ে তাঁর লেখা ‘ভুলব না, ভুলব না, ভুলব না এই একুশে ফেব্রুয়ারি ভুলব না’ গান দিয়েই প্রথম দিকে প্রভাতফেরি হতো।

ঊনসত্তরের উত্তাল দিনগুলোয় গাজীউল হক বগুড়ায় থেকেই ১১ দফা আন্দোলনে অংশ নেন। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ মাত্র ২৭ জন যুবক নিয়ে গাজীউল হক পাকিস্তানি সৈন্যদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধের সিদ্ধান্ত নেন। সঙ্গে পুলিশ ও ইস্ট পাকিস্তান রাইফেলসের জওয়ানরাও যোগ দেন। এপ্রিলে তিনি মুক্তিযুদ্ধের মুখপাত্র জয়বাংলা পত্রিকার বিক্রয় বিভাগের দায়িত্বসহ আকাশবাণী ও স্বাধীন বাংলা বেতারকেন্দ্র থেকে রণাঙ্গনের সংবাদ প্রচারের দায়িত্ব পালন করেন।

১৭ই জুন, ২০০৯ বুধবার বিকেল পাঁচটায় তিনি তাঁর পূর্ব হাজিপাড়ার বাসায় মারা যান। তিনি ডায়াবেটিস, হৃদরোগ ও বার্ধক্যজনিত নানা অসুখে ভুগছিলেন। গাজীউল হক সুপ্রিম কোর্টে আইন ব্যবসায় নিয়োজিত থেকে আজীবন বাঙালির মুক্তির সংগ্রামের সঙ্গে নিজেকে যুক্ত রেখেছিলেন। তিনি আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ছিলেন। প্রথম জীবনে তিনি বগুড়াতেই আইন ব্যবসা করতেন।

পুরস্কার-সম্মাননাঃ
গাজীউল হক বিভিন্ন পুরস্কার ও সম্মাননা পেয়েছেন। ২০০০ সালে তিনি একুশে পদক পান। এ ছাড়া ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ‘জাহানারা ইমাম পদক’, শেরেবাংলা জাতীয় পুরস্কার, বাংলা একাডেমীর সম্মানসূচক ফেলো, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সম্মাননা, তমদ্দুন মজলিসের পক্ষ থেকে মাতৃভাষা পদক ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।


Comments (0)        Print        Tell friend        Top


Other Articles:
কাসেম, আবুল প্রিন্সিপাল (১৯২০-১৯৯১)
বাচ্চু, রওশন আরা (১৯৩২)
ইসলাম, অধ্যাপক মির্জা মাজহারুল (১৯২৭)
চৌধুরী, সাবির আহমদ (১৯২৪)
মাহবুব, কাজী গোলাম (১৯২৭-২০০৬)
বেগম, মমতাজ (১৯২৩-১৯৬৭)



 
  ::| Events
May 2019  
Su Mo Tu We Th Fr Sa
      1 2 3 4
5 6 7 8 9 10 11
12 13 14 15 16 17 18
19 20 21 22 23 24 25
26 27 28 29 30 31  
 
::| Hot News
ভাষাসৈনিক আবদুল মতিন
সালাম, শহীদ আব্দুস (১৯২৫-১৯৫২)
রফিক, শহীদ মোহাম্মদ (১৯৩২-১৯৫২)
রহমান, শহীদ সফিউর (১৯১৮-১৯৫২)
বরকত, শহীদ আবুল  (১৯২৭-১৯৫২)
জব্বার, শহীদ আব্দুল (১৯১৯-১৯৫২)
অহিউলস্নাহ, শহীদ (জন্ম : অজ্ঞাত, মৃতু : ১৯৫২)
কাসেম, আবুল প্রিন্সিপাল (১৯২০-১৯৯১)
বাচ্চু, রওশন আরা (১৯৩২)
ইসলাম, অধ্যাপক মির্জা মাজহারুল (১৯২৭)

Online News Powered by: WebSoft
[Top Page]