Sunday, 12.17.2017, 11:31pm (GMT+6)
  Home
  FAQ
  RSS
  Links
  Site Map
  Contact
 
আবদুুল হাই মাশরেকী ছিলেন মূলসংস্কৃতির শিকড়ের আধুনিক কবি ; লোককবি আবদুুল হাই মাশরেকীর ৯৭তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে শিল্পকলায় দুদিনব্যা ; লোককবি আবদুুল হাই মাশরেকীর ৯৭ তম জন্মজয়ন্তী আগামী ১ এপ্রিল ২০১৬ ; আল মুজাহিদী ; ভাষাসৈনিক আবদুল মতিন
::| Keyword:       [Advance Search]
 
All News  
  গুণীজন সংবাদ
  বিপ্লবী
  ভাষা সৈনিক
  মুক্তিযোদ্ধা
  রাজনীতিবিদ
  কবি
  নাট্যকার
  লেখক
  ব্যাংকার
  ডাক্তার
  সংসদ সদস্য
  শিক্ষাবিদ
  আইনজীবি
  অর্থনীতিবিদ
  খেলোয়াড়
  গবেষক
  গণমাধ্যম
  সংগঠক
  অভিনেতা
  সঙ্গীত
  চিত্রশিল্পি
  কার্টুনিস্ট
  সাহিত্যকুঞ্জ
  ফটো গ্যাল্যারি
  কবিয়াল
  গুণীজন বচন
  তথ্য কর্ণার
  গুণীজন ফিড
  ফিউচার লিডার্স
  ::| Newsletter
Your Name:
Your Email:
 
 
 
নাট্যকার
 

মনোমোহন বসু




মনোমোহন বসু

মনোমোহন বসু (১৮৩১-১৯১২) ছিলেন একজন বিশিষ্ট নাট্যকার এবং এবং মঞ্চাধ্যক্ষ । মনোমোহন বসু ডেভিড হেয়ারের ছাত্র এবং কবি ঈশ্বর গুপ্তের শিষ্য ছিলেন । ছাত্রাবস্থাতেই তিনি প্রভাকর এবং তত্ত্ববোধিনী পত্রিকায় প্রবন্ধ লিখতে থাকেন ।

১৮৭২ খ্রীষ্টাব্দে তিনি মধ্যস্থ নামের একটি সাপ্তাহিক পত্রিকা প্রকাশ করেন । তিনি ছিলেন এই পত্রিকার সম্পাদক । পরে এই পত্রিকা পাক্ষিক এবং মাসিক রূপেও প্রকাশিত হয়েছিল । তিনি পাঞ্জাবকেশরী রণজিৎ সিংহের উপর একটি তথ্যভিত্তিক জীবনী দুলীন রচনা করে খ্যাতিলাভ হয়েছিলেন । তাঁর লেখা বিদ্যালয়ের পাঠ্যবই পদ্যমালা বেশ জনপ্রিয় ছিল ।

শুরুর দিকে মনোমোহন যাত্রা, হাফ-আখড়াই, পাঁচালী, কীর্তন, বাউল নানা বিষয়ের সঙ্গীত রচনা করতেন ।

তৎকালীন যুগে যাত্রার মান খুবই নিচুস্তরে নেমে গিয়েছিল। মনোমোহন যাত্রাকে উন্নত করে মানুষের কাছে গ্রহনযোগ্যতা বাড়াবার চেষ্টা করেন । তাঁর রচিত নাটকগুলি বাইরে থেকে আধুনিক নাটকের মত ছিল কিন্তু ভিতর থেকে ছিল এদেশের যাত্রাধর্মী । এই নাটকগুলি যাত্রার মত খোলামঞ্চে এবং আধুনিক থিয়েটারের মত স্টেজ বেঁধেও অভিনয় করা যেত । এই সময়ে গীতাভিনয় নামক এক রকমের মিশ্রধর্মী ফর্ম তৈরি হয়েছিল । থিয়েটার ও যাত্রার মিশ্রন মনোমোহন তাঁর নাটকগুলির মধ্যে করেছিলেন । যাঁদের স্টেজ বেঁধে থিয়েটার করার মত আর্থিক সঙ্গতি ছিল না আবার থিয়েটারের প্রতি আকর্ষণ ছিল এবং যাত্রাকেও পুরোপুরি ছাড়তে পারছিলেন না এরকম মানুষদের কাছে মনোমোহন খুবই জনপ্রিয় ও শ্রদ্ধেও ছিলেন ।

মনোমোহন বহুবাজার বঙ্গ নাট্যালয় -এর সঙ্গে পৃষ্ঠপোষক এবং নাট্যকার হিসাবে যুক্ত ছিলেন । এই সময়ে তিনি বেশ কিছু নাটক রচনা করেছিলেন । রামাভিষেক (প্রথম অভিনয়: ১৮৬৮), সতী (১৮৭৪), হরিশ্চন্দ্র (১৮৭৫) প্রভৃতি নাটকগুলি বহুবার অভিনীত হয়ে খুবই জনপ্রিয় হয়েছিল ।

সতী নাটকটি বিয়োগান্তক হওয়াতে অনেকে আপত্তি করেন । তাই মনোমোহন একটি মিলনান্তক ক্রোড়অঙ্ক লিখে ছাপিয়ে এর সাথে জুড়ে দেন । বিয়োগান্তক নাটককে এভাবে ক্রোড়অঙ্ক জুড়ে মিলনান্তক করার এই হাস্যকর পদ্ধতি বাংলা যাত্রায় ছিল । কিন্তু মনোমোহনের ব্যবহারে বাংলা নাটকেও এই রীতি জনপ্রিয় হয় ।

১৮৭২ খ্রীষ্টাব্দে ন্যাশন্যাল থিয়েটার প্রতিষ্ঠার উদ্যোগে মনোমোহন উৎসাহী ছিলেন । নতুন যুগের এই থিয়েটারকে স্বাগত করে তিনি বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে দীর্ঘ বক্তৃতা দিয়েছিলেন ।

মনোমোহন বেশ কয়েকটি রঙ্গালয়ে পেশাদারিভাবে মঞ্চাধ্যক্ষের কাজ করেন । এবং বাংলা থিয়েটারের যুগবদলের সন্ধিক্ষনে দাঁড়িয়ে তিনি যাত্রাকে উন্নত এবং সঙ্গীতের অংশগুলিকে মার্জিত করেন ।

নাট্যতালিকা
রামাভিষেক(১৮৬৮)
সতী (১৮৭৪)
হরিশ্চন্দ্র (১৮৭৫)
প্রণয় পরীক্ষা (১৮৬৯)
পার্থপরাজয় (১৮৮১)
রাসলীলা (১৮৮৯)
আনন্দময় (১৮৯০)


Comments (0)        Print        Tell friend        Top


Other Articles:
বিজন ভট্টাচার্য
সেলিম আল দীন
সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্



 
  ::| Events
December 2017  
Su Mo Tu We Th Fr Sa
          1 2
3 4 5 6 7 8 9
10 11 12 13 14 15 16
17 18 19 20 21 22 23
24 25 26 27 28 29 30
31            
 
::| Hot News
সাঈদ আহমদ
সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্

Online News Powered by: WebSoft
[Top Page]